ঢাকা, রবিবার, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৬ রজব ১৪৪২

আইন ও আদালত

ওটিটি তদারকিতে খসড়া নীতিমালা হাইকোর্টে দাখিলের নির্দেশ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬০৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৮, ২০২১
ওটিটি তদারকিতে খসড়া নীতিমালা হাইকোর্টে দাখিলের নির্দেশ হাইকোর্ট, ফাইল ফটো

ঢাকা: ওভার দ্য টপ (ওটিটি) প্ল্যাটফর্ম নির্ভর কনটেন্ট প্রকাশের ওপর তদারকি, নিয়ন্ত্রণ ও রাজস্ব আদায়ে তিন মাসের মধ্যে একটি খসড়া নীতিমালা আদালতে দাখিল করতে বলা হয়েছে।

সোমবার (১৮ জানুয়ারি) বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

তথ্য সচিব ও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যানের প্রতি এ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এর আগে আদালতে এ বিষয়ে বিটিআরসি ও পুলিশের পক্ষ থেকে প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে ছিলেন আবেদনকারী আইনজীবী তানভীর আহমেদ। বিটিআরসির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খন্দকার রেজা-ই-রাকিব। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

ওয়েব সিরিজ সংক্রান্ত সব ওটিটি প্ল্যাটফর্ম থেকে অনৈতিক ও আপত্তিকর ভিডিও কনটেন্ট পরিবেশন রোধে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে ওটিটি নির্ভর বিভিন্ন ওয়েবপেজ প্ল্যাটফর্ম তদারকির জন্য নীতিমালা প্রণয়নের কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না তাও জানতে চেয়েছেন।

এক রিটের পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব, তথ্য সচিব, সংস্কৃতি সচিব ও বিটিআরসির চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্ট আটজনকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে ছিলেন আবেদনকারী আইনজীবী তানভীর আহমেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যার্টনি জেনারেল নূর উস সাদিক।

বিটিআরসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এসব প্ল্যাটফর্ম থেকে তাদের কোনো রাজস্ব আদায় হয় না। কোনো ধরনের রেগুলেশন না থাকায় সেটি আদায় হচ্ছে না। পুলিশের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এসব ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন এবং পর্ণগ্রাফি আইন থাকলেও প্ল্যাটফর্ম থেকে অশ্লীলতারোধে সুনির্দিষ্ট কোনো নীতিমালা নেই। যার ফলে সব সময় সব ধরনের ব্যবস্থা নিতে পারেন না। এ কারণে যদি এ ধরনের একটা নীতিমালা হয় তাহলে এটা নিয়ন্ত্রণ করা সুবিধা হবে। বিটিআরসির আইনজীবী বলেছে, নীতিমালার জন্য উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।  

এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে আদালত একটি খসড়া নীতিমালা করে তিন মাসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দিয়েছেন।

গত বছরের ১৪ জুন ওয়েবভিত্তিক মিডিয়া সার্ভিস প্ল্যাটফর্মগুলোতে প্রকাশ করা দেশীয় সংস্কৃতি ও সামাজিক মূল্যবোধবিরোধী অনুপযোগী কনটেন্ট সরাতে সরকারকে লিগ্যাল নোটিশ দেন। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে তথ্য সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, বিটিআরসি চেয়ারম্যান, আইজিপিসহ সংশ্লিষ্টদের বরাবরে এ নোটিশ পাঠানো হয়েছিল। ওই আইনি নোটিশের কোনো ধরনের অগ্রগতি না দেখে ১২ জুলাই জনস্বার্থে আইনজীবী তানভীর আহমেদ রিট করেন।

ওই রিটের আদেশের ধারাবাহিকতায় খসড়া নীতিমালা দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়।
  
বাংলাদেশ সময়: ১৬০৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৮, ২০২১
ইএস/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa