ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৭ মাঘ ১৪২৭, ২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৭ জমাদিউস সানি ১৪৪২

জাতীয়

প্রতি ১২ সেকেন্ডে দেশে ১টি সোশ্যাল মিডিয়া আইডি খোলা হয়

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৪০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩, ২০২০
প্রতি ১২ সেকেন্ডে দেশে ১টি সোশ্যাল মিডিয়া আইডি খোলা হয় ডিএমপি'র সাইবার অপরাধ তদন্ত বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) নাজমুল ইসলাম

ঢাকা: দেশে প্রতি ১২ সেকেন্ডে একটি সোশ্যাল মিডিয়া আইডি বা অ্যাকাউন্ট খোলা করা হয়। ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটস অ্যাপ, ইনস্টাগ্রাম, টেলিগ্রামের মতো প্ল্যাটফর্মগুলোতে এসব আইডি খোলা হয়।

এমনটাই জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) সাইবার অপরাধ তদন্ত বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) নাজমুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) ‘আমরা মেয়েরা বলছি’ প্ল্যাটফর্মের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন এবং গোল টেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এই আয়োজনে সাইবার অপরাধ ও নিরাপত্তা নিয়ে বক্তব্য তুলে ধরেন এডিসি নাজমুল ইসলাম।

ইন্টারনেট এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সংঘটিত অপরাধ নিয়ে নাজমুল ইসলাম বলেন, দেশে এখন প্রতি ১২ সেকেন্ডে একটি সোশ্যাল মিডিয়া আইডি বা একাউন্ট চালু হয়। ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটস অ্যাপ, ইনস্টাগ্রাম, টেলিগ্রাম, ইমো এর মতো প্ল্যাটফর্মগুলোতে আইডি খোলা হচ্ছে। এখন দেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ১০ কোটি। আর মোবাইল সিম ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ১৬ কোটি। তবে সূত্র হচ্ছে যেখানেই উন্নয়ন হবে সেখানেই বিচ্যুতি ঘটবে। ডিজিটাল মাধ্যমে সংঘটিত অপরাধের একটি বড় অংশ এখন হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়াতে।

অন্যদিকে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে সংঘটিত অপরাধের অন্যতম টার্গেট হিসেবে নারীদেরকেই বেছে নেওয়া হয় বলে জানান পুলিশের কর্মকর্তা। তবে পুরুষরাও যে ভিকটিম হন না তেমন না।  
অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) বলেন, ব্যক্তি পর্যায়ে সাইবার ক্রাইমের অন্যতম টার্গেট নারীরা। বিশেষ করে নারীদের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট হ্যাক করা যাকে আমরা বলি কম্পোমাইজ হয়ে যাওয়া। অথবা নারীদের নামে ভুয়া অ্যাকাউন্ট তৈরি করা। যেসব নারীরা ফেসবুক বা অন্য মাধ্যমে অনলাইন ব্যবসার সঙ্গে জড়িত তাদের আইডির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে পেইজের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া; এ ধরনের অপরাধ বেশি হয়। এছাড়াও সাইবার বুলিং, অনাকাঙ্ক্ষিত কনটেন্ট ছড়িয়ে দেওয়ার মতো অপরাধের শিকারও হন নারীরা। পুরুষদেরও সাইবার অপরাধের শিকার হতে দেখেছি আমরা। বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যে থাকা প্রবাসীদের ক্ষেত্রে। তাদের ইমো অ্যাকাউন্ট হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে পরবর্তীতে তাদের ব্ল্যাকমেইল করা হয়।

সাইবার অপরাধ থেকে বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানও নিরাপদ নয় বলে জানান তিনি। এক্ষেত্রে ব্যাংকের মতো বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান অপরাধীদের প্রথম পছন্দ।

সাইবার অপরাধের শিকার হওয়ার পাশাপাশি সাইবার অপরাধীরা বেশিরভাগই তরুণ বয়সের। সাইবার অপরাধ সম্পর্কে তরুণদের সেভাবে কাউন্সিলিং না করানোয় কোনটি সাইবার অপরাধ সে সম্পর্কে থাকা অজ্ঞতার কারণেই এমনটি হয় বলে জানান দীর্ঘদিন এবিষয়ে দায়িত্ব পালন করা নাজমুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে নাজমুল ইসলাম বলেন, আমরা যেসব হ্যাকারদের গ্রেফতার করি বিভিন্ন ঘটনায় দেখা যায় তাদের বয়স ১৩ থেকে ১৮ বছরের মধ্যে। এই বয়সের তরুণরা যারা সাইবার অপরাধে জড়িয়ে পড়ছেন তারা অনেকেই জানেন না যে এটা অপরাধ। দেখা যায় অনেকটা মজার ছলেই তারা বড় বড় সাইবার অপরাধ করে ফেলেন।

সাইবার অপরাধের শিকার হওয়া যেকোন ব্যক্তিকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর শরণাপন্ন হওয়ার পরামর্শ দিয়ে নাজমুল আরও বলেন, সাইবার অপরাধের শিকার অনেকেই অপরাধের ঘটনা চেপে যান। এটা ঠিক না। এতে অন্যরাও ঝুঁকিতে পড়েন। অপরাধ হলে পুষে যাবেন না। সাইবার তদন্ত বিভাগগুলোকে জানান। ডিএমপি’র পাশাপাশি সিআইডি, পিবিআই এবং র‍্যাবের নিজস্ব সাইবার সেল রয়েছে।

প্রসঙ্গত, সহিংসতা এবং নির্যাতনের শিকার নারীদের সহায়তা দেওয়ার উদ্দেশ্য নিয়ে যাত্রা আরম্ভ করলো ‘আমরা মেয়েরা বলছি’ প্ল্যাটফর্ম। বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ব্র্যান্ড কনসোর্টিয়াম এবং দেশের শীর্ষ অনলাইনভিত্তিক গণমাধ্যম বাংলানিউজের যৌথ উদ্যোগে এই প্ল্যাটফর্মের যাত্রা আরম্ভ হলো।

সমাজের সকল পর্যায়ের জন্য ২৪ ঘণ্টা উন্মুক্ত এই প্ল্যাটফর্মে দেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, নারী ও শিশু অধিকার নিয়ে কাজ করা ব্যক্তিবর্গসহ বিভিন্ন খাত সংশ্লিষ্টরা স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে যুক্ত থাকবেন।

গোলটেবিল আলোচনায় জানানো হয়, সমাজের যেসব নারীরা বিভিন্ন ধরনের অপরাধ ও সহিংসতার শিকার তারা এই প্ল্যাটফর্মে তাদের অভিজ্ঞতা জানাতে পারবেন। সরকারি এবং বেসরকারি পেশাজীবীদের সাহায্যে নির্যাতিত নারীদের সহায়তা করবে ‘আমরা মেয়েরা বলছি’। নির্যাতিত নারী যেন দ্রুত আইনি এবং সামাজিক প্রতিকার পান সে বিষয়ে কাজ করবে প্ল্যাটফর্মটি।

নির্যাতিত কোন নারী অথবা কোন অপরাধের শিকার হওয়া নারী চাইলে ফেসবুকের মাধ্যমে ‘আমরা মেয়েরা বলছি’ প্ল্যাটফর্মের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন। ফেসবুক লিংক- https://bit.ly/3mF4ZFm

এছাড়াও বাংলানিউজের একটি সাব ডোমেইন বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টায় উন্মুক্ত হবে। সেখানেও যোগাযোগ করা যাবে। একই সঙ্গে ২৪ ঘণ্টা চালু থাকা হটলাইন নম্বর – ০১৭৩০৭১৩১৭৭ নম্বরেও যোগাযোগ করা যাবে।

অনুষ্ঠানটিতে সভাপতিত্ব করেন বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম-এর সম্পাদক জুয়েল মাজহার। এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম-এর হেড অব নিউজ আহমেদ জুয়েল, ডিজিএম (মার্কেটিং) আজিজুর রহমান অনু, ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) মাহমুদা আফরোজ লাকী, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী শারমিন জাহান, সেলিনা আখতার চৌধুরী, সহকারী অ্যটর্নি জেনারেল শাহ লা শরাফত নিজাদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শামস আর নওরীন, স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব ফারজানা ইব্রাহিম, লিজিয়ন হারবালের চেয়ারম্যান তানিয়া হক, ওমেন অ্যান্ড ই-কমার্স ফোরামের সভাপতি নাসিমা আক্তার নিশাসহ উপস্থিত অতিথিরা বক্তব্য রাখেন।

বাংলাদেশ সময়: ১০৪০, ডিসেম্বর ০৩, ২০২০
এসএইচএস/জেআইএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad
Alexa