ঢাকা, রবিবার, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৬ রজব ১৪৪২

জাতীয়

দেশি মাছের গবেষণা সাফল্যে গবেষকদের প্রশংসায় মন্ত্রী

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৮, ২০২১
দেশি মাছের গবেষণা সাফল্যে গবেষকদের প্রশংসায় মন্ত্রী মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম

ঢাকা: বাংলাদেশের মৎস্য বিজ্ঞানীরা অকল্পনীয় সাফল্য দেখাতে পেরেছেন জানিয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, তাদের বড় বড় যন্ত্র নেই, বড় অংকের বরাদ্দ নেই তবু তারা গবেষণায় সাফল্য দেখাতে পেরেছেন।

তিনি বলেন, ছোট ছোট দেশীয় বিলুপ্তপ্রায় মাছ তারা ফিরিয়ে এনেছেন।

বৈরালী, বালাচাটা, আঙ্গুস, জাতপুটি মাছের প্রজনন কৌশল ও চাষাবাদ পদ্ধতি আবিষ্কৃত হয়েছে। দাতিনা মাছের প্রজনন কৌশল অবিষ্কৃত হয়েছে। দেশীয় প্রজাতির মাছ সংরক্ষণে ময়মনসিংহে মাছের লাইভ জীন ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।
সোমবার (১৮ জানুয়ারি) সচিবালয়ে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিএফআরআই) বোর্ড অব গভর্নরসের ৪০তম সভায় সভাপতির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, দেশের সব প্রান্তে দেশীয় প্রজাতির মাছ ছড়িয়ে দেওয়া হবে। এলক্ষ্যে সরকার কাজ করছে। অথচ একটা সময় মাছের সংকট শুরু হয়েছিলো। রাসায়নিক সারের ব্যবহার, ভূমির অপরিকল্পিত ব্যবহার, পুকুর, হ্রদসহ অন্যান্য জলাশয়ের অপর্যাপ্ততার কারণে মৎস্য উৎপাদন কমে গিয়েছিলো। একচেটিয়া এক বিষয়ে গুরুত্ব দিতে গিয়ে অন্যদিক বিনাশ হয়ে গিয়েছিলো। সে জায়গায় বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট, মৎস্য অধিদপ্তর এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় মৎস্য খাতে একটা বিপুল সাফল্য নিয়ে এসেছে। এ সাফল্যের সবচেয়ে বড় কৃতিত্ব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।

মন্ত্রী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেকোনো উন্নয়ন প্রকল্পে গবেষণা খাতের ওপর গুরুত্ব দেন। গবেষণার মাধ্যমে আমরা যদি নতুনত্ব আনতে পারি, আধুনিক উপযোগিতা আনতে পারি, পুষ্টির স্তর উন্নয়ন করতে পারি তাহলে আমরা সার্থকভাবে এগিয়ে যেতে পারবো। গতানুগতিক পদ্ধতিতে এগিয়ে যাওয়া যাবে না। এ বছর মৎস্য গবেষণার ব্যাপক সাফল্য এসেছে।

সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য ও বিএফআরআই বোড অব গভর্নেরসের সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য (কৃষি, পানি সম্পদ ও পল্লী প্রতিষ্ঠান) মো. জাকির হোসেন আকন্দ, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান, মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী শামস্ আফরোজ, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ মোহাম্মদ বখতিয়ার, বিএফআরআইয়ের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ, অর্থ বিভাগের যুগ্ম সচিব মুন্সী আবদুল আহাদ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মাহবুবা পান্না সভায় বক্তব্য দেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৮, ২০২১
এমআইএইচ/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa